tag: জয়া আহসান অভিনেত্রী দুই বাংলার। আমাদের খবর | Amader Khabor
Thu. Oct 29th, 2020

আমাদের খবর

খবরের সাথে সব সময়

জয়া আহসান অভিনেত্রী দুই বাংলার।

1 min read
জয়া আহসান অভিনেত্রী দুই বাংলার

জয়া আহসান অভিনেত্রী দুই বাংলার। (jaya ahsan) বর্তমান সময়ে দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী তিনি। অভিনয়ে ব্যস্ততার খবর নিয়মিত প্রকাশ হলেও ভালোবাসার সম্পর্ক কার সঙ্গে সেটা গোপনই রেখেছেন। কিছুদিন আগে ভারতীয় এক গণমাধ্যমে জয়া আহসান (jaya ahsan) জানিয়েছিলেন প্রেম করছেন তিনি।  কিন্তু পাত্র কলকাতার নয়। বাংলাদেশের একজনের সঙ্গেই প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে তার। বিয়ে তাকেই করবেন। এমন সব খবর উঠে আসে।

ভারতীয় গণমাধ্যমের সে খবর ছড়িয়ে পড়লেও বাংলাদেশে এসে সে খবরটিই উড়িয়ে দেন জয়া। জানান, আমার বিশেষ বন্ধু আছে।

কিন্তু সেটা কখনোই প্রেমঘটিত কিছু না।

অনেক দিন ধরে টাইমস অব ইন্ডিয়া থেকে আমাকে প্রশ্ন করেছিল প্রেম ও ভালোবাসার সম্পর্ক নিয়ে।

আমি কিন্তু তাদের বলেছি, আমার স্পেশাল বন্ধু আছে। খুবই ভালো বন্ধু আছে।

কিন্তু এটা কখনোই প্রেম কিংবা ভালোবাসা নয়। আর বিয়ের তো প্রশ্নই ওঠে না। তাহলে কি জয়ার ভালোবাসার মানুষ নেই?

জয়া আহসান (jaya ahsan) ঢাকায় এসেছিলেন কিছুটা সময় তার মায়ের সংঙ্গে কাটানোর জন্য। মায়ের সংঙ্গে এবার ভালোবাসা দিবসটি কাটিয়েছেন। বাংলাদেশে আরোও কিছিু বিষয়ে ইচ্ছে ছিল কিন্তু সময় সল্পতার জন্য হয়নি।

বিগত দিনে তার মুক্তি প্রতীক্ষিত সিনেমার প্রচারণা ও নতুন সিনেমার শুটিং নিয়ে কলকাতায় তা ব্যস্ত সময় পার করেছেন জয়া আহসান।

তারই মধ্যে হঠাৎ করে টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে উঠে আসে প্রেম করেছেন ২০২০ সালে বিয়ে করবেন।

সাংবাদিকদের এমন খবরের সত্যতা সরাসরি উড়িয়ে দিলেন জয়া আহসান (jaya ahsan)

বিচ্ছেদের পর অনেক বছর ধরে নিজের মতো করেই পথ চলা শুরু করেছেন জয়া আহসান।

নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন কাজের মধ্যে তারই মধ্যে কয়েক দফা তাঁকে ঘিরে প্রেমের গুঞ্জন্র শোনা গেছে।

তবে কখনোও এ সবের সত্যতা মেলেনি এবং তিনি এসব এড়িয়ে গেছেন।

প্রতি নিয়ত নিত্যনতুন সিনেমার কাজের খবর দিয়ে নিজেকে আলোচনায়া রেখেছেন তিনি।

টাইমস অব ইন্ডিয়া

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার সঙ্গে আড্ডায় মেতেছিলেন প্রসেনজিৎ ও জয়া। সাক্ষাৎকারে কলকাতার এক তারকার বরাত দিয়ে জানতে চাওয়া হয়, জয়া নাকি বাংলাদেশের একজনের সঙ্গে প্রেম করছেন। ২০২০ বিয়ে করবেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে জয়া বলেন, ‘ওহ্! আমার সম্পর্কে এত কিছু কে বললেন?’ এরপর প্রশ্ন রাখা হয়, তাহলে কি সংবাদটি গুজব?

জয়া নাকি বলেন, ‘না। আমি প্রেম করছি। যাঁর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছি, তিনি বাংলাদেশের।

ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির কেউ নন। কিন্তু বিয়ের দিনক্ষণ এখনো ঠিক হয়নি।’

সারা দিন শুটিংয়ে ব্যস্ত থাকলেও সন্ধ্যায় কথা হয় জয়ার সঙ্গে।

আমাদের খবরকে জানালেন, ‘আমার বিশেষ বন্ধু আছে। কিন্তু সেটা কখনোই প্রেমঘটিত কিছু না।

অনেক দিন ধরে টাইমস অব ইন্ডিয়া থেকে আমাকে প্রশ্ন করেছিল প্রেম ও ভালোবাসার সম্পর্ক নিয়ে।

কিন্তু আমি তাঁদের বলেছি, আমার স্পেশাল বন্ধু আছে।

খুবই ভালো বন্ধু আছে। কিন্তু এটা কখনোই প্রেম কিংবা ভালোবাসা নয়। আর বিয়ের তো প্রশ্নই ওঠে না।’

জয়া বলেন, ‘আমি এমনভাবে কাজ করি, দুই দেশ মিলিয়ে—আমার হাতে এমন অখণ্ড সময় নেই যে কারও সঙ্গে প্রেম করব।

আমার মতো এত ব্যস্ত একজন মানুষের সঙ্গে কে–ইবা প্রেম করবে বলেন! প্রেম করতে গেলে সময় দিতে হয়, আমি তো সেই সময় দিতে পারব না।

আমার সেই সময় কোথায়। আমার সব প্রেম আপাতত কাজের সঙ্গে।’

 

তবে কখনো যদি প্রেমের সম্পর্কে জড়ান কিংবা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন, তা অবশ্যই সবাইকে জানাবেন বললেন জয়া আহসান (jaya ahsan)। তাঁর মতে, এটা নিয়ে লুকোচুরি করার কিছুই নেই। জয়া বলেন, ‘প্রেম করি, বিয়ে করি সেটা কেন বলব না। গোপন করার তো কিছুই দেখছি না। আমি যথেষ্ট ম্যাচিউরড একজন মানুষ। জীবনের এমন সিদ্ধান্ত নিলে তা অবশ্যই সবাইকে জানাব।’

জয়া আহসান

জয়া আহসানের মতে, টাইমস অব ইন্ডিয়া সাক্ষাৎকার নিতে গেলে প্রায়ই তাঁর প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে জিজ্ঞেস করে। বলেন, ‘দুই দেশে যেহেতু কাজ করছি, তাই ওখানেও ভক্তদের মধ্যে আমাকে নিয়ে আগ্রহ আছে। সে কারণে ব্যক্তিগত বিষয়ে তারা জানতে চায়। সে কারণে এভাবে উদ্ধৃতি দিয়ে প্রেম ও বিয়ের খবরটি প্রকাশ করেছে, যা মোটেও এমনটা নয়।’

 

কিন্তু আগামী বছর বিয়ের কথা যে বলা হলো? এমন প্রশ্নে জয়া বলেন, প্রেমই যেখানে নেই, সেখানে বিয়ের তো প্রশ্নই আসে না।

জয়া আহসান বা জয়া মাসউদ হলেন একজন বাংলাদেশী মডেল ও অভিনেত্রী। তিনি পশ্চিমবঙ্গের চলচ্চিত্রেও কাজ করেন। অভিনয়ের স্বীকৃতি হিসেবে তিনি তিনটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, দুটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পূর্ব, ছয়টি মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার, দুবার ভারতীয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং আরও অসংখ্য পুরস্কার অর্জন করেছেন।

জন্মের তারিখ এবং স্থান: ১ জুলাই, ১৯৭২ (বয়স ৪৮ বছর), ঢাকা। উচ্চতা: ১.৬৩ m। স্বামী বা স্ত্রী: ফাইসাল আহসান (বিবাহ. ১৯৯৬–২০১২) । ভাইবোন: কান্তা করিম। পুরস্কার: বাংলাদেশ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার – শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *