tag: করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ৩৩ চিকিৎসক। আমাদের খবর
Sun. Oct 25th, 2020

আমাদের খবর

খবরের সাথে সব সময়

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ৩৩ চিকিৎসক।

1 min read
: https://amaderkhabor.com/করোনায়-আক্রান্ত-হয়ে-মারা/

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ৩৩ চিকিৎসক। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের কাছে সমগ্র বিশ্ববাসী একে একে পরাজয় বরণ করছেন। তবুও থেমে নেয় এই মহামারি প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসকে প্রতিহত করা। পৃথিবীর সকল চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ এই মহামারি করোনা ভাইরাসকে মোকাবেলা করবার জন্য রাত দিন এক করে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। যাতে করে পৃথিবীর সকল মানবজাতি এই মহামারি ভাইরাস থেকে রক্ষা পায়। ইতি মধ্যে প্রায় ৮৫ লাখ মানুষ এই মহামারি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। চিকিৎসা বিজ্ঞানের সহায়তায় বিশেসজ্ঞ চিকিৎসকেরা তাদের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় প্রায় ৪৪ লাখ মানুষ সুস্থ্য করেছেন। এই সকল মানুষকে সুস্থ্য করতে গিয়ে বহু ডাক্তার, নার্স এবং অসংখ্যা স্বাস্থ্য সেবাকর্মীদের এই মহামারি ভাইরাসে প্রাণ দিতে হয়েছে।

আমাদের বাংলাদেশে সরকারী ঘোষিত তালিকা অনুযায়ী ৩৩ জন চিকিৎসকের প্রাণ এই মহামারি করোনা ভাইরাসে কেড়ে নিয়েছে।

বাংলাদেশে সকল মানুষ এই সকল চিকিৎসকদের জান্নাতবাসীর জন্য দোয়া করি।

আরো পড়ুনঃ mugda medical college হাসপাতালে চিকিৎসা না পেয়ে মারা গেলেন।

আমরা বাংলাদেশী মানুষ, এই সকল ডাক্তার ও সেবাদানকারীদের প্রাণ উৎসর্গের কথা স্বরণকরে আগামীতে এই ভাইরাসকে প্রতিরোধ করবার জন্য নিজ নিজ অবস্থান থেকে নিজেকে ও পরিবারকে সুরক্ষা ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, ইতোমধ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তিন শতাধিক চিকিৎসক, নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মী।

৩৩ জন চিকিৎসক মারা গেছেন করোনায় আক্রান্ত হয়ে বা এর উপসর্গ নিয়ে।

এদের মধ্যে যেমন জ্যেষ্ঠ ও অভিজ্ঞ চিকিৎসক রয়েছেন, তেমনি তরুণ চিকিৎসকও রয়েছেন।

 

বিএমএ থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে মারা যাওয়া ৩৩ চিকিৎসক হলেন—

১. সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ডাক্তার মঈন উদ্দীন।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১৫ এপ্রিল রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

২. রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হেমাটোলজিস্ট অধ্যাপক কর্নেল (অবসর) ডাক্তার মোহম্মদ মনিরুজ্জামান।

গত ৩ মে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মারা যান।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন

৩. রাজধানীর নদার্ন মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ এবং ফরেনসিক মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আনিসুর রহমান।

গত ১১ জুন করোনা ভাইরাস উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

৪. ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের একাদশ ব্যাচের শিক্ষার্থী ও রেডিওলজিস্ট মুক্তিযোদ্ধা মেজর (অবসরপ্রাপ্ত) ডাক্তার আবুল মোকারিম মোহম্মদ মোহসিন উদ্দিন।

গত ১২ মে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

৫. ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের ত্রয়োদশ ব্যাচের শিক্ষার্থী ডাক্তার মোহম্মদ আজিজুর রহমান রাজু।

গত ১৮ মে করোনা উপসর্গ নিয়ে রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

৬. স্বাস্থ্য অধিদফতরের অবসরপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক ডাক্তার এম এ মতিন। করোনার উপসর্গ নিয়ে সিলেট শামসুদ্দিন আহমেদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২২ মে মারা যান।

৭. ডাক্তার কাজী দিলরুবা। করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২২ মে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

৮. চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডাক্তার এস এম জাফর হোসাইন।

গত ২৫ মে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

 

৯. অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র কনসালট্যান্ট (গাইনি) ডা. আমিনা খান। করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ২৬ মে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

১০. অ্যানেস্থেসিয়া ও আইসিইউ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আব্দুর রহমান।

করোনার উপসর্গ নিয়ে গত ২৬ মে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

১১. বরিশালের শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজের অর্থোপেডিক বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান ডাক্তার মোহম্মদ মোশাররফ হোসেন।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৭ মে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

১২. শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী অবসরপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন (আর্মি মেডিকেল কোর) ডাক্তার এ এফ এম সাইদুল ইসলাম।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৮ মে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মারা যান।

১৩. সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের চতুর্দশ ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী ও বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ওয়াহিদুজ্জামান আকন্দ বাবলু। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৩১ মে মারা যান।

১৪. ডাক্তার মনজুর রশিদ চৌধুরী (অবসর কনসালট্যান্ট ঢাকা মেডিকেল) গত ২ জুন রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

৩৩ চিকিৎসক

১৫. চট্টগ্রাম মেরিন সিটি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ডাক্তার এ এস এম এহসানুল করিম।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ৩ জুন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

১৬. রাজধানীর ইব্রাহিম মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবিয়াল বিভাগের অধ্যাপক ডাক্তার মোহম্মদ মহিউদ্দিন।

গত ৩ জুন রাজধানীর হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

১৭. স্বাস্থ্য অধিদফতরের অবসরপ্রাপ্ত ইভালুয়েশন অফিসার ডা. কে এম ওয়াহিদুল হক। করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ৩ জুন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান।

১৮. ফরেনসিক মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. হাবিবুর রহমান।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ৪ জুন প্রাইমেট জেনারেল হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

১৯. চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসা কর্মকর্তা (ইএমও) ডাক্তার মুহিদুল হাসান। করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ৪ জুন চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

২০. ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সাবেক অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান (মেডিসিন) অধ্যাপক ডা. এন আই খান। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ৪ জুন মারা যান।

 

২১. বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউরোলজি বিভাগের সাবেক বিভাগীয় চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এস এ এম গোলাম কিবরিয়া। করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ৪ জুন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

২২. রংপুর মেডিকেল কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী ডা. এহসানুল কবির চৌধুরী। রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৪ জুন মৃত্যুবরণ করেন।

২৩. অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র মেডিকেল অফিসার (সাভার ইপিজেড) ডা. আবুল কাশেম খান। করোনার উপসর্গ নিয়ে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৬ জুন মৃত্যুবরণ করেন।

২৪. রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের সিনিয়র কনসালট্যান্ট ও পরিচালক (মেডিকেল সার্ভিসেস) ডা. মির্জা নাজিম উদ্দিন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ৭ জুন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

২৫. ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী ডা. রাজিয়া সুলতানা। রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৮ জুন মারা যান।

২৬. ময়মনসিংহের ল্যাবএইড হাসপাতালের কনসালট্যান্ট (অ্যানেস্থেসিয়া) ডা. সাখাওয়াত হোসেন।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ৮ জুন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

করোনায় মৃত্যু

২৭. বরিশালের রাহাত আনোয়ার হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডা. আনোয়ার হোসেন।

করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ৯ জুন রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

২৮. রাজধানীর ইমপালস হাসপাতালের আইসিইউ ইনচার্জ ও সিনিয়র কনসালট্যান্ট অধ্যাপক ডা. জলিলুর রহমান।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ৯ জুন ইমপালস হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান

২৯. রাজধানীর জেড এইচ শিকদার ওমেন্স মেডিকেল কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী ডা. তানজিলা রহমান।

গত ১০ জুন ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

৩০. অধ্যাপক ডাক্তার গাজী জহিরুল হাসান (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল সার্জারি বিভাগ)।

তিনি গত ১২ জুন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

৩১. জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক (কার্ডিওলজি বিভাগ) ডা. মাহমুদ মনোয়ার।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১২ জুন মৃত্যুবরণ করেন।

৩২. রাজধানীর জেড এইচ শিকদার ওমেন্স মেডিকেল কলেজের চক্ষু বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. এ কে এম ফজলুল হক।

করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১২ জুন মারা যান।

 

৩৩. ঢাকা মেডিকেল কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী ডা. আরিফ হাসান। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১২ জুন মারা যান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *